কার্ডিওলজি


হৃদয়ের ব্যাপারে আমাদের আছে ভারতের সর্ববৃহৎ কার্ডিয়াক স্পেশালিটি সেন্টার যেখানে একই ছাদের তলায় মিনিমালি ইনভেসিভ প্রক্রিয়া সহ সর্বাঙ্গীন হার্ট কেয়ার, ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা প্রদান করা হয়।

OUR STORY

Know About Us

Why Manipal?

বিশ্বমানের কার্ডিয়াক পরিষেবার সাথে মনিপাল হসপিটাল সমার্থক হয়ে গেছে। মনিপাল হসপিটালের কার্ডিওলজি বিভাগ হল দিল্লীর দ্বারকায় অবস্থিত সেরা কার্ডিওলজিস্ট সমন্বিত কেন্দ্র, যেখানে সব ধরণের কার্ডিওভাস্কুলার অসুখের ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা সহ সামগ্রিক সমাধান প্রদান করা হয়।

এই বিভাগ সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিভিন্ন হৃদরোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা করে।

প্রক্রিয়াগুলির সময় অগাধ অভিজ্ঞতাসম্পন্ন প্যারামেডিক্যাল কর্মীরা ডাক্তারের টিমকে সহায়তা করেন। মনিপাল হসপিটালের সার্জারি পরবর্তী যত্ন ও রিহ্যাবিলিটেশন পরিষেবা দেশের মধ্যে সেরা।

এই বিভাগ কার্ডিওভাস্কুলার সমস্যার চিকিৎসায় হওয়া উন্নতির সাথে সঙ্গতি রেখেছে এবং আরও ভালো ও কার্যকরী চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার জন্য হসপিটালে সেগুলি ধারাবাহিকরূপে প্রয়োগ করে চলেছে।

আমাদের বিশেষজ্ঞ কার্ডিয়াক টিমে আছেন ইকোকার্ডিওলজিস্ট, ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট, ইলেক্ট্রোফিজিওলজিস্ট, রেডিওলজিস্ট, ও কার্ডিওভাস্কুলার সার্জন এবং এখনও পর্যন্ত 2161টি সফল কার্ডিয়াক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছেন। 

Treatment & Procedures

করোনারি অ্যাঞ্জিওগ্রাম

করোনারি অ্যাঞ্জিওগ্রাম আপনার হার্টে রক্ত প্রবাহে কোন বাধা পড়ছে কিনা তা দেখার জন্য একটি এক্স-রে ইমেজিং পরীক্ষা করা হয়। হার্টের সমস্যা ডায়াগনোস করার জন্য এই পরীক্ষাটিই সর্বাধিক প্রচলিত। করোনারি অ্যাঞ্জিওগ্রাফির সময়, একটি ছোট ক্যাথিটার বা টিব ত্বকের মধ্যে দিয়ে হাত বা কুঁচকির একটি ধমনীতে ঢোকানো হয়। একটি বিশেষ এক্স-রে দেখার যন্ত্রের মাধ্যমে ক্যাথিটারটিকে…

Read More

টিএমটি – ট্রেড মিল টেস্ট

সংক্ষিপ্ত বিবরণ: • টিএমটি বা ট্রেড মিল টেস্ট বা স্ট্রেস পরীক্ষা বা ব্যায়াম পরীক্ষায় পরিমাপ করা হয় দ্রুত স্পন্দিত হলে ও পরিশ্রম করলে হৃৎপিণ্ড কতটা ভালোভাবে কাজ করতে পারে। এই সময় হৃৎপিণ্ডে যথেষ্ট পরিমাণে রক্ত পৌঁছায় কিনা তা স্ট্রেস টেস্টের সাহায্যে বুঝতে পারা যায়। প্রক্রিয়া-পূর্ব ব্যবস্থা: • স্ট্রেস টেস্টের প্রস্তুতি নিতে, 3 ঘণ্টা আগে থেকে খাওয়া, জলপান…

Read More

ইকোকার্ডিওগ্রাম

সংক্ষিপ্ত বিবরণ: • ইকোকার্ডিওগ্রাম হল হার্টের আলট্রাসাউন্ড। এটি প্রমাণ 2D, 3D ও ডপলার আলট্রাসাউন্ড ব্যবহার করে হার্টের ছবি তৈরি করে। এই পরীক্ষায় রেডিয়েশন ব্যবহৃত হয় না। প্রক্রিয়া-পূর্ব ব্যবস্থা: • প্রক্রিয়ার আগে নির্দিষ্ট কোন নির্দেশ মেনে চলার দরকার হয় না। • ধাতব গহনা/ অ্যাক্সেসরি/ বেল্ট ইত্যাদি না পরাই ভালো। প্রক্রিয়া চলাকালীন ব্যবস্থা: • আপনাকে আরামদায়কভাবে…

Read More

হল্টার প্রক্রিয়া

সংক্ষিপ্ত বিবরণ: • হল্টার মনিটর হল একটি ছোট, পরিধানযোগ্য, বহনযোগ্য ইলেট্রোকার্ডিওগ্রাফি যন্ত্র যা হৃৎস্পন্দনের হিসাব রাখে ও তা নথিবদ্ধ করে রাখে। প্রক্রিয়া-পূর্ব ব্যবস্থা: • হল্টার মনিটরিং হল পরিকল্পিত আউট-পেশেন্ট প্রক্রিয়া। • এই অ্যাপয়েন্টমেন্টের আগে আপনাকে অবশ্যই স্নান করে নিতে হবে। বেশীরভাগ মনিটরই খোলা যায় না এবং মনিটরিং শুরু হওয়ার পরে শুকনো রাখতে…

Read More

রেডিয়াল পদ্ধতি ও ফিমোরাল পদ্ধতির…

রেডিয়াল পদ্ধতি ও ফিমোরাল পদ্ধতির মাধ্যমে করোনারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হৃৎপিণ্ডের বদ্ধ ধমনী খোলার জন্য নিয়মিতভাবে করোনারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি সম্পন্ন করা হয়। এর ফলে বুকে ব্যাথা ও শ্বাসকষ্টের মত উপসর্গের উপশম হয়। অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি অনেক সময় হার্ট অ্যাটাকের ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হয়, যাতে বদ্ধ ধমনী দ্রুত খোলা যায় আর হার্টের ক্ষতির পরিমাণ কমানো যায়। এই প্রক্রিয়ায়…

Read More

ইসিজি

সংক্ষিপ্ত বিবরণ: • ইসিজি বা ইলেট্রোকার্ডিওগ্রাম হল একটি সহজ, দেহের বাইরে থেকে সম্পন্ন করা প্রক্রিয়া যেখানে হৃৎস্পন্দন ও তার ছন্দ রেকর্ড করা হয়। ইসিজি করার মাধ্যমে সার্জারির আগে বা পরে হার্ট কতটা সুস্থ আছে তা দেখা যায় বা কোন পরিচিতি সমস্যা রয়েছে কিনা তা খুঁজে বের করা যায়। প্রক্রিয়া-পূর্ব ব্যবস্থা: • আপনি কি কি ওষুধ খাচ্ছেন তা ডাক্তারবাবুকে জানাবেন কারণ…

Read More

এমার্জেন্সি পারকিউটেনিয়াস করোনারি…

এমার্জেন্সি পারকিউটেনিয়াস করোনারি ইন্টারভেনশন/ এমার্জেন্সি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হল একটি প্রক্রিয়া যা অবস্ট্রাক্টিভ করোনারি আর্টারি অসুখ, এসটি-এলিভেশন মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন (এসটি-ইএমআই) বা বড় ও আকস্মিক ধরণের হার্ট অ্যাটাকের ক্ষেত্রে সুপারিশ করা হয়, যেক্ষেত্রে হৃৎপিণ্ডের মুখ্য একটি ধমনী বাধা পায়। গুরুতর হার্ট অ্যাটাক হওয়া রোগীদের ক্ষেত্রে “ডোর-টু-বেলুন”…

Read More

কার্ডিয়াক ডিভাইস ইমপ্ল্যান্টেশন

কার্ডিয়াক ডিভাইস বুক বা পেটের ত্বকের নীচে স্থাপন করা হয় যা হৃৎস্পন্দনের অস্বাভাবিকতা নিয়ন্ত্রণ করে। পেসমেকার বা ইমপ্ল্যান্টেবল কার্ডিওভার্টার-ডিফাইব্রিলেটর (আইসিডি) ইত্যাদি কার্ডিয়াক ডিভাইস স্থাপনের পরামর্শ দেওয়া হবে যদি আপনি ভেন্ট্রিকুলার অ্যারিথমিয়া (অনিয়মিত হৃৎস্পন্দন), হার্ট অ্যাটাক বা জন্মগত হৃৎপিণ্ডের অসুখে আক্রান্ত হন। সবথেকে বেশী প্রচলিত কার্ডিয়াক…

Read More

ইমার্জেন্সি পারকিউটেনিয়াস করোনারি…

ইমার্জেন্সি পারকিউটেনিয়াস করোনারি ইন্টারভেনশন (পিসিআই) পারকিউটেনিয়াস করোনারি ইন্টারভেনশন (পিসিআই) হল ন্যুনতম কাটা-ছেঁড়া করে সম্পন্ন করা একটি প্রক্রিয়া যা হৃৎপিণ্ডের রক্তপ্রবাহ অবাধ করতে করোনারি ধমনীর প্রতিবন্ধকতা দূর করে। এই প্রক্রিয়া লোকাল অ্যানেস্থেশিয়া প্রয়োগ করে সম্পন্ন করা হয় এবং ব্লক হওয়া ধমনী দেখার জন্য কার্ডিওলজিস্টরা এক্স-রে ব্যবহার করেন।…

Read More

ওপেন হার্ট সার্জারি

এই প্রক্রিয়ায় বক্ষগহ্বর খুলে একটি বাইপাস সিস্টেম তৈরি করা হয় যার মাধ্যমে রক্ত হৃৎপিণ্ডে প্রবেশ না করেই সারা দেহে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ওপেন হার্ট সার্জারির ক্ষেত্রে, সার্জারি প্রক্রিয়া বা তদন্ত সম্পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত হৃৎপিণ্ড থামিয়ে রাখা হয়। সার্জারির লক্ষ্য পূরণ হয়ে গেলে, সার্জন হার্ট চালু করেন এবং বক্ষগহ্বর বন্ধ করে দেন।

Read More

করোনারি লিজ্যন ফিজিওলজিকাল অ্যাসেসমেন্ট…

করোনারি লিজ্যন ফিজিওলজিকাল অ্যাসেসমেন্ট ও ইমেজিং (এফএফআর, আইভিইউএস, ওসিটি) মনিপাল হসপিটালের কার্ডিয়াক ইউনিটে আছে অত্যাধুনিক ডায়াগনোস্টিক ও টেস্টিং মেশিন যা উন্নত প্রযুক্তি ও নিখুঁত সরঞ্জামের সাথে যুক্ত হয়ে সবথেকে জটিল সমস্যারও নিখুঁত সমাধান প্রদান করে। প্রচলিত কার্ডিয়াক টেস্টে করোনারি ধমনীর ক্ষতির পরিমাণ প্রকাশিত হয়, যার সাহায্যে কার্ডিওলজিস্টরা সবথেকে…

Read More

3D অ্যাব্লেশন সহ ইলেক্ট্রোফিজিওলজিকাল…

3D অ্যাব্লেশন সহ ইলেক্ট্রোফিজিওলজিকাল রেডিও অ্যাব্লেশন (ইআরএ) ইলেক্ট্রোফিজিওলজি পরীক্ষার মাধ্যমে জানা যায় আপনার হৃৎপিণ্ডে কীভাবে বৈদ্যুতিক সংকেত চলাচল করে। এই সংকেতগুলি যখন স্বাভাবিক গতিবিধি দেখায়, তখন হৃৎস্পন্দন স্বাভাবিক থাকে। সংকেত যখন অস্বাভাবিক থাকে, তখন হৃৎস্পন্দন অনিয়মিত হয়, একে অ্যারিথমিয়া বলে। রেডিওফ্রিকোয়েন্সি অ্যাব্লেশন (আরএ) হল একটি প্রক্রিয়া…

Read More

ট্রান্সআওর্টিক ভাল্ভ ইমপ্ল্যান্টেশন…

ট্রান্সআওর্টিক ভাল্ভ ইমপ্ল্যান্টেশন, লেফট অ্যাট্রিয়াল অ্যাপেন্ডেজ ক্লোজার, বেলুন মাইট্রাল ভাল্ভোটমি, বেলুন পালমোনারি ভাল্ভোটমি সহ স্ট্রাকচারাল হার্ট ডিজিজ ইন্টারভেনশন ট্রান্সক্যাথিটার আওর্টিক ভাল্ভ ইমপ্ল্যান্টেশন (টিএভিআই) আওর্টিক ভাল্ভ বা মহাধামনীক কপাটিকাআপনার হৃৎপিণ্ড থেকে অন্যান্য দেহযন্ত্রে রক্তের প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করে। টিএভিআই হল একটি ন্যুনতম…

Read More

জটিল জন্মগত হৃদরোগের হিমোডায়নামিক…

বিশেষ কার্ডিয়াক এমআরআই ব্যবহার করে, দেহের জন্মগত হৃদরোগ শনাক্ত করার জন্য একজন কার্ডিওলজিস্ট হিমোডায়নামিক পরিবর্তনের মূল্যায়ন করেন। রোগীর আয়ু বৃদ্ধি করা ও জীবনের মান উন্নত করার জন্য প্রারম্ভিক পর্যায়ে জন্মগত হৃত-সমস্যার শনাক্তকরণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

Read More

স্টেনোটিক ভাল্ভের বেলুন ডাইলেশন

আওর্টিক ভাল্ভ সরু হওয়া বা বদ্ধ হয়ে যাওয়ায় আক্রান্ত শিশুদের ক্ষেত্রে বেলুন ডাইলেশন হল সেরা চিকিৎসা পদ্ধতি। এই পদ্ধতি ন্যুনতম কাটা-ছেঁড়া করে সম্পন্ন করা হয়, রোগীর অস্বস্তি কম হয়, এবং আরোগ্যলাভও দ্রুত হয়। ক্যাথিটার নামক একটি সরু নলে একটি চোপসানো বেলুন সংযুক্ত করে সরু হয়ে যাওয়া ধমনীতে পাঠানো হয় যেখানে বেলুনটি ফুলিয়ে সরু বা বদ্ধ ধমনীকে খুলে দেওয়া হয়।

Read More

বেলুন মিট্রাল ভাল্ভোটমি

বেলুন মাইট্রাল ভাল্ভোটমি মাইট্রাল ভাল্ভ বা দ্বিপত্র কপাটিকাটি হৃৎপিণ্ডে বাম অলিন্দ ও বাম নিলয়ের মাঝখানে অবস্থান করে। অনেক সময়, এই ভাল্ভ যথাযথভাবে খোলা বা বন্ধ হয় না, ফলে হার্ট থেকে দেহের অন্যান্য অংশে রক্ত প্রবাহে বাধা পড়ে এবং রক্ত চুঁইয়ে বাম অলিন্দে ফিরে যায়। ভাল্ভটি সরুও হয়ে যেতে পারে। বেলুন মাইট্রাল ভাল্ভোপ্লাস্টি প্রক্রিয়া ব্যবহার করে মাইট্রাল…

Read More

বেলুন পালমোনারি ভাল্ভোটমি

বেলুন পালমোনারি ভাল্ভোটমি হৃৎপিণ্ডের নীচের দুটি প্রকোষ্ঠকে ভেন্ট্রিকল বা নিলয় বলা হয় আর ডান নিলয় রক্ত ফুসফুসে পাঠায়। এটি ফুসফুলে যাওয়া প্রধান রক্তনালী, পালমোনারি আর্টারি বা ফুসফুসীয় ধমনীর সাথে সংযুক্ত থাকে। ডান নিলয় ও ফুসফুসীয় ধমনীর মাঝখানে থাকে ফুসফুসীয় কপাটিকা বা পালমোনারি ভাল্ভ, হৃৎপিণ্ডের চারটি ভাল্ভের একটি। স্বাভাবিক হৃৎপিণ্ডে ডান নিলয় সঙ্কুচিত…

Read More

ভেন্ট্রিকুলার সেপ্টাল ডিফেক্ট…

ভেন্ট্রিকুলার সেপ্টাল ডিফেক্ট (ভিএসডি) ক্লোজার হৃৎপিণ্ডের নীচের দুটি প্রকোষ্ঠকে (নিলয়) বিভাজিত করা প্রাচীরকে সেপ্টাম বলা হয়, যাতে ফুটো হয়ে যাওয়ার নাম ভিএসডি। সুস্থ হৃৎপিণ্ডে, বাম প্রকোষ্ঠ থেকে দেহে রক্ত সরবরাহ হয় এবং ডান প্রকোষ্ঠ থেকে ফুসফুসে। নিলয়দুটির মাঝখানে অস্বাভাবিক ছিদ্র তৈরি হলে, প্রচুর পরিমাণে অক্সিজেন সমৃদ্ধ (লাল) রক্ত বাঁদিক থেকে ডানদিকে…

Read More

অ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট ক্লোজার…

অ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট ক্লোজার, ভেন্ট্রিকুলার সেপ্টাল ডিফেক্ট ক্লোজার, পিডিএ ডিভাইস ক্লোজার, পালমোনারি এভিএম ক্লোজার সহ প্রাপ্তবয়স্কদের জন্মগত হৃদরোগের চিকিৎসা ব্যবস্থা অ্যাডাল্ট কনজেনিটাল হার্ট ডিজিজ (এসিএইচডি) জন্মগৎ হৃদরোগ হল সবথেকে সাধারণ জন্মগত ত্রুটি। এক্ষেত্রে উপসর্গহীন সমস্যা থেকে সঙ্কটজনক ও প্রাণঘাতী জটিল প্রকারের সমস্যা যেমন, ছিদ্রের…

Read More

পেটেন্ট ডাক্টাস আর্টেরিওসাস পিডিএ…

পেটেন্ট ডাক্টাস আর্টেরিওসাস (পিডিএ) ডিভাইস ক্লোজার পিডিএ হল হৃৎপিণ্ড থেকে বের হওয়া রক্ত বহনকারী প্রধান ধমনী, আওর্টা বা মহাধমনীর একটি উন্মুক্ত ছিত্র। স্বাভাবিক হৃৎপিণ্ডের ক্ষেত্রে এর বামদিক শুধুমাত্র দেহে রক্ত পাঠায় এবং ডানদিক ফুসফুসে রক্ত পাঠায়। পিডিএ থাকলে, দেহের ধমনী বা আওর্টা থেকে অতিরিক্ত রক্ত বের হয়ে ফুসফুসের (পালমোনারি) ধমনীতে চলে যায়। পিডিএ…

Read More

পালমোনারি আর্টেরিওভেনাস ম্যালফর্মেশন…

পালমোনারি আর্টেরিওভেনাস ম্যালফর্মেশন (এভিএম) ক্লোজার ধমনী ও শিরাগুলির মধ্যে যখন অস্বাভাবিক সংযোগ গড়ে ওঠে তখন এই সমস্যা দেখা দেয়। ফুসফুসের এভিএম, ফুসফুসের শিরা ও ধমনীর মধ্যে সরাসরি নালীপথ হিসাবে কাজ করে যা রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা কমায় এবং লাং ক্যাপিলারির মধ্যে দিয়ে পরিশ্রুত হওয়ার পদ্ধতির মধ্যে ব্যাক্টেরিয়া ও জমাট বাঁধা রক্তও পার হয়ে যায়। পালমোনারি এভিএম…

Read More

অটোমেটেড কার্ডিওভার্টার ডিফাইব্রিলেটর…

অটোমেটেড কার্ডিওভার্টার ডিফাইব্রিলেটর (আইসিডি) ইমপ্ল্যান্টেশন অটোমেটেড ইমপ্ল্যান্টেবল কার্ডিওভার্টার ডিফাইব্রিলেটর (এআইসিডি) হল একটি ছোট ইলেকট্রনিক ডিভাইস যা বুকে স্থাপন করে টাকিকার্ডিয়াস নামক দ্রুত হৃৎস্পন্দনের সমস্যার কারণে কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে হঠাৎ মৃত্যু থেকে রক্ষা করে। এই সার্জারির মাধ্যমে কলার বোনের কাছের শিরায় অন্তরক তার ঢুকিয়ে এক্স-রের মাধ্যমে…

Read More

কার্ডিয়াক রিসিঙ্ক্রোনাইজেশন থেরাপি…

কার্ডিয়াক রিসিঙ্ক্রোনাইজেশন থেরাপি (সিআরটি) ও সিআরটিডি ইমপ্ল্যান্টেশন সিআরটি হার্ট ফেলিওরের বা অ্যারিথমিয়ার (অনিয়মিত হৃৎস্পন্দন) জন্য প্রেসক্রাইব করা হয়। সিআরটি ডিভাইস দুই প্রকারের হয় – একটি হল বাইভেন্ট্রিকুলার পেসমেকার ও অন্যটি একই যন্ত্র যার মধ্যে ইমপ্ল্যান্টেবল কার্ডিওভার্টার ডিফাইব্রিলেটর থাকে এবং একে কার্ডিয়াক রিসিঙ্ক্রোনাইজেশন থেরাপি ডিফাইব্রিলেটর…

Read More

পিডিয়াট্রিক কার্ডিওলজি ট্রিটমেন্ট

ফিটাল ইকোকার্ডিওগ্রাম আপনার গর্ভস্থ শিশু সুস্থ, স্বাভাবিকভাবে বেড়ে উঠছে এটা জানতে পারা একজন আসন্ন মায়ের কাছে সবথেকে আনন্দের বিষয়ে। আপনার ও শিশুর নিয়মিত পরীক্ষায় তা জানা যেতে পারা। আপনার গাইনিকোলজিস্ট যদি হৃৎস্পন্দনের অস্বাভাবিকতা বা ভ্রূণের অন্য কোন সমস্যা শনাক্ত করেণ, তাহলে তিনি ফিটাল ইকোকার্ডিওগ্রামের সুপারিশ করবেন। ফিটাল ইকোকার্ডিওগ্রাম, আলট্রাসাউন্ডের…

Read More

Facilities & Services

নন-ইনভেসিভ কার্ডিওলজি: কার্ডিওলজির এই উপবিভাগে ইমেজিং পদ্ধতির মত বাহ্যিক পরীক্ষা ব্যবহার করে হার্টের অসুখের শনাক্তকরণ বা চিকিৎসা করা হয়।

আমাদের হসপিটালে উপলব্ধ বিভিন্ন ইমেজিং পরীক্ষাগুলি হল:

  • ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম (ইসিজি):হৃৎপিণ্ড দ্বারা উৎপন্ন হওয়া বৈদ্যুতিক সংকেত রেকর্ড করে এবং অস্বাভাবিক হৃৎস্পন্দন শনাক্ত করতে পারে।
  • ইকোকার্ডিওগ্রাম (ইকো): এটি আলট্রাসাউন্ড ব্যবহার করে এবং হৃৎপিণ্ডের গঠন নির্ধারিত করে আর হার্টের আকার, রক্ত পাম্প করার দক্ষতা, হার্টের ভাল্ভ ও ছিদ্র ইত্যাদি অস্বাভাবিকতা বুঝতে পারে।
  • স্ট্রেস ইকো: বিশ্রামের সময় ও ব্যায়ামের চূড়ান্ত অবস্থায় হার্টের দক্ষতা যাচাই করে এবং হার্টের রক্তনালীগুলির ব্লকেজের  দেখতে সাহায্য করে।
  • ট্রেডমিল টেস্ট: ট্রেডমিলে ব্যায়াম করার সময় ইসিজি নিরীক্ষণ করে।
  • ডোবিউটামিন স্ট্রেস ইকোকার্ডিওগ্রাম (ডিএসই): এই পরীক্ষাটি সেইসব রোগীর ক্ষেত্রে স্ট্রেস ইকোর বিকল্প হিসাবে ব্যবহৃত হয় যারা ব্যায়াম করতে পারেন না। ডোবিউটামিন নামের একটি ওষুধ শিরায় ইনজেক্ট করা হয় যাতে হৃৎস্পন্দন দ্রুত হয়ে যায়।

  • 24 ঘণ্টার হল্টার মনিটরিং: এটি একটি ব্যাটারিচালিত যন্ত্র যা 24-48 ঘণ্টার জন্য হৃৎস্পন্দন ও ছন্দ নিরীক্ষণ করে (ইসিজি)।
  • অ্যাম্বুলেটরি ব্লাড প্রেশার মনিটরিন (এবিপিএম): একটি যন্ত্র যা সর্বক্ষন রক্তচাপ মেপে যাবে।
  • ট্রান্সইসোফ্যাগাল ইকোকার্ডিওগ্রাম (টিইই) টেস্ট: এক্ষেত্রে হার্টের একটি এন্ডোস্কোপি নির্দেশিত আলাট্রাসাউন্ড ব্যবহৃত বিস্তারিত ও নিখুঁত ছবি নেওয়া হয়। এই পরীক্ষা ব্যবহার করে হার্টের ভাল্ভ ও প্রকোষ্ঠগুলির অস্বাভাবিকতা যাচাই করা হয়।
  • পিডিয়াট্রিক ইকোকার্ডিওগ্রাম: এটি একটি নিরাপদ ও যন্ত্রণাহীন পরীক্ষা যেখানে আলট্রাসাউন্ড ব্যবহার করে শিশুর হার্টের ছবি নেওয়া হয়। জন্মের সময় উপস্থিত হার্টের সমস্যা চিহ্নিত করে।
  • ফিটাল ইকোকার্ডিওগ্রাম: গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে বেড়ে ওঠা ভ্রূণের হার্টের অস্বাভাবিকতা শনাক্ত করার জন্য এই পরীক্ষা করা হয়।

ইনভেসিভ কার্ডিওলজি: কার্ডিওলজির এই শাখায় ওপেন হার্ট সার্জারি বা ন্যুনতম কাটা-ছেঁড়া করে সম্পন্ন করা প্রক্রিয়া ব্যবহার করে হার্ট ব্লকেজ বা ভাল্ভ ডিফেক্টের মত বিভিন্ন হার্টের সমস্যার চিকিৎসা করা হয়।

আমাদের হসপিটালে উপলব্ধ বিভিন্ন প্রক্রিয়াগুলি হল:

  • অ্যাঞ্জিওগ্রাফি: অ্যাঞ্জিওগ্রাফি ব্যবহার করে হার্টের রক্তনালিকায় থাকা বাধার উপস্থিতি ও মাত্রা শনাক্ত করা হয়। এই প্রক্রিয়ায় বিশেষ রঞ্জক ব্যবহার করা হয়, সেটি ক্যাথিটারের মাধ্যমে ইনজেক্ট করা হয় এবং একটি এক্স-রে ডিভাইসের মাধ্যমে রক্তনালিকায় ক্যাথিটারের প্রবাহ নিরীক্ষণ করা হয়।
  • জটিল অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি ও স্টেন্টিং সহ অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি: করোনারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হল একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে বাধাপ্রাপ্ত ধমনী খোলা হয়। করোনারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টির সময়, একটি বেলুন ঢুকিয়ে ধমনীর বন্ধ হয়ে যাওয়া স্থানে ফোলানো হয় যাতে রক্ত অবাধে প্রবাহিত হতে পারে। করোনারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টিতে একটি ধাতব জাল, স্টেন্ট ব্যবহার করা হতেও পারে আবার নাও হতে পারে, যেটি একটি ধমনীর মধ্যে গিয়ে প্রসারিত হয় যাতে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকতে পারে।
  • রোটাব্লেশন: ধমনী থেকে প্লাক বাদ দেওয়ার জন্য একটি বিশেষ ক্যাথিটার ব্যবহার করা হয়। ক্যাথিটারটিতে একটি তীক্ষ ডায়ামন্ড-টিপ থাকে যা দ্রুতগতিতে ঘুরে  প্লাকটিকে সরিয়ে দেয় এবং এটি ক্যালসিফায়েড লিজ্যনের জন্য ব্যবহার করা হয়।
  • ইন্ট্রাভাস্কুলার আলট্রাসাউন্ড (আইভিইইউএস): এটি একটি ডায়াগনোস্টিক পরীক্ষা যা প্লাক জমার মত ধমনী প্রাচীরের অস্বাভাবিকতা শনাক্ত করে। এক্ষেত্রে আলট্রাসাউন্ড তরঙ্গ সহ একটি ক্যাথিটার, কুঁচকির মধ্যে দিয়ে করোনারি ধমনীতে ঢোকানো হয় এবং ব্লকেজের বৈশিষ্ট্য নির্ধারন করা হয়।
  • ফ্র্যাকশনাল ফ্লো রিজার্ভ (এফএফআর) প্রক্রিয়া: এটি ব্যবহার করে করোনারি ধমনীর একটি নির্দিষ্ট অংশের মাধ্যমে রক্তের প্রবাহ ও রক্তচাপ পরিমাপ করা হয়। এটি সাধারণত রুটিন করোনারি অ্যাঞ্জিওগ্রাফির সময় করা হয় ব্লকেজের জটিলতার মূল্যায়ন করার জন্য।
  • অ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট (এএসডি), প্যাটেন্ট ডাক্টাস আর্টেরিওসাস (পিডিএ),ভেন্ট্রিকুলার সেপ্টাল ডিফেক্ট (ভিএসডি) এর ডিভাইস ক্লোজার: ক্লোজার ডিভাইসগুলি ব্যবহার করে হার্টে উপস্থিত ত্রুটি (ছিদ্র) বন্ধ করা হয়।
  • পেরিফেরাল ও ক্যারোটিড অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি: একটি ছোট স্ফীত বেলুন ও স্টেন্টের সাহায্যে প্রান্তীয় ধমনীসমূহ ও মস্তিষ্কে রক্ত সরবরাহকারী ক্যারোটিড ধমনীতে পর্যাপ্ত রক্তপ্রবাহ ফিরিয়ে আনা
  • ট্রান্সক্যাথিটার আওর্টিক ভাল্ভ রিপ্লেসমেন্ট (টিএভিআর): মিনিমালি ইনভেসিভ প্রক্রিয়া যেখানে বুকে কাটা-ছেঁড়া না করে কুঁচকির মাধ্যমে আওর্টিক ভাল্ভ প্রতিস্থাপন করা হয়।
  • ইলেক্ট্রোফিজিওলজি ও পেসিং: কার্ডিওলজির এই শাখায় হৃৎস্পন্দন সংক্রান্ত সমস্যার ডায়াগনোসিস ও ব্যবস্থা করা হয়, যাকে অ্যারিথমিয়া বলা হয়।
  • ইলেকট্রোফিজিওলজি স্টাডি (ইপিএস): এটি হৃৎপিণ্ডের বৈদ্যুতিক ব্যবস্থার একটি অধ্যয়ন যা স্বাভাবিক ও অস্বাভাবিক হৃৎস্পন্দনের উৎস ও সঞ্চালন শনাক্ত করার জন্য সম্পন্ন করা হয়। এটি ক্যাথ ল্যাব নামক একটি বিশেষ ঘরে করা হয় যেখানে ইপিএস সিস্টেম থাকে এবং প্রক্রিয়ার সময় রোগীকে হালকা ঘুমের ওষুধ দেওয়া থাকে।
  • রেডিওফ্রিকোয়েন্সি অ্যাব্লেশন (আরএফএ): হৃৎপিণ্ডের স্বাভাবিক ছন্দ ফেরাতে অস্বাভাবিক আবর্তন সংশোধন করার জন্য হৃদকলার একটি ছোট স্থান মুছে ফেলতে রেডিয়োফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করে।
  • পেসমেকার: একটি ছোট ব্যাটারিচালিত যন্ত্র কলার বোনের কাছে বসানো হয় এবং তারগুলি হৃৎপিণ্ডের ভিতরে থাকে যাতে মন্থর হৃৎস্পন্দন ও অচৈতন্য হওয়া আটকানো যায়।
  • অটোমেটেড ইমপ্ল্যান্টেবল কার্ডিওভার্টার ডিফাইব্রিলেটর (এআইসিডি): এই ছোট ব্যাটারিচালিত যন্ত্র বুকের ভিতরে বসানো হয় যা অনিয়মিত হৃৎস্পন্দন শনাক্ত করে এবং হৃৎপিণ্ডে বৈদ্যুতিক শক পাঠিয়ে হৃৎস্পন্দনের বিপজ্জনক অস্বাভাবিকতার সংশোধন করে প্রাণ বাঁচায়।
  • কার্ডিয়াক রিসিঙ্ক্রোনাইজেশন থেরাপি (সিআরটি) ডিভাইস ইমপ্ল্যান্টেশন: একটি বিশেষ ধরণের পেসমেকার যা স্থাপন করে উভয় নিলয়কে একই সময়ে স্পন্দিত করে এবং তার ফএল হার্ট থেকে বেরিয়ে আসা রক্তের প্রবাহ বাড়ায়।

পিডিয়াট্রিক কার্ডিওলজি: আমাদের হসপিটালে আছে এক এক্সপার্ট টিম ও উন্নত প্রযুক্তি, যার সাহায্যে শিশুদের বিভিন্ন হার্টের সমস্যার ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা করা হয়, যেমন:

  • ফিটাল ইকোকার্ডিওগ্রাম
  • জন্মগত হৃৎপিণ্ডের ত্রুটির ডায়াগনোসিস ও মূল্যায়ন এবং ডায়াগনোসিসের পরে কাউন্সেলিং
  • অ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট (এএসডি), ভেন্ট্রিকুলার সেপ্টাল ডিফেক্ট (ভিএসডি) ইত্যাদি সেপ্টাল ডিফেক্ট বন্ধ করা: মনিপাল হসপিটালের এক্সপার্টরা মিনিমালি ইনভেসিভ সার্জারির মাধ্যমে সফলভাবে সেপ্টাল ডিফেক্টের চিকিৎসা করেন।

  • সদ্যজাতদের স্টেনোটিক ভাল্ভের বেলুন ডাইলেটেশন: ভাল্ভ স্টেনোসিস হল একটি সমস্যা যেখানে ভাল্ভের মুখ সরু হয়ে রক্ত প্রবাহ কমে যায়। শিশুদের ক্ষেত্রে, জন্মের সময়েই এই সমস্যা থাকতে পারে এবং বেলুন ডাইলেটেশন সার্জারির মাধ্যমে এর সংশোধন করা যেতে পারে।
  • পেটেন্ট ডাক্টাস আর্টেরিওসাস ক্লোজার: ডাক্টাস আর্টেরিওসাস হল একটি ছিদ্র যার মাধ্যমে গর্ভস্থ শিশুর ফুসফুসে অক্সিজেন লাভের জন্য রক্ত প্রবাহিত হওয়ার প্রয়োজন হয় না। তবে, এই ছিদ্র শিশুর জন্মলাভের 
  • পরেই স্বাভাবিকভাবে বন্ধ হয়ে যায়, যাতে ফুসফুস থেকে রক্ত অক্সিজেন সংগ্রহ করতে পারে। কিছু বাচ্চার ক্ষেত্রে, এই ছিদ্র জন্মের পরেও খোলা থেকে যায় এবং একে পেটেন্ট ডাক্টাস আর্টেরিওসাস বলা হয়। এইসব ক্ষেত্রে, সার্জারির মাধ্যমে সেলাই করে বা একটি মেটাল ক্লিক বসিয়ে ছিদ্র বন্ধ করা হয়।
  • কার্ডিয়াক ক্যাথিটারাইজেশন স্টাডি: একটি লম্বা সরু নল, যাকে ক্যাথিটার বলা হয়, রক্তনালীতে ঢুকিয়ে হার্ট পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হয় এবং হার্টের বিভিন্ন অসুখের ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা করা হয়।
  • কয়েল এম্বলাইজেশন: অ্যানিউরিজম হল রক্তনালী স্ফীত হওয়া বা একটি দুর্বল স্থান তৈরি হওয়া। অ্যানিউরিজমের ফলে রক্তনালী থেকে রক্ত চুঁইয়ে পড়ে। ফলে স্ট্রোক বা হ্যামারেজ হয়। কয়েল এম্বলাইজেশন হল একটি মিনিমালি ইনভেসিভ প্রক্রিয়া যেখানে মেটাল কয়েল দিয়ে অ্যানিউমারিজম আটকানো হয় যাতে রক্ত বেরিয়ে না যায়।

মনিপাল হসপিটালে নিযুক্ত দিল্লীর সেরা কার্ডিওলজিস্ট ও কার্ডিওভাস্কুলার সার্জনরা কার্যকরী চিকিৎসার জন্য নিখুঁত ডায়াগনোসিসে বিশ্বাস করেন। আমাদের চিকিৎসকদের মধ্যে আছেন – এক্সপার্ট ইকো কার্ডিওলজিস্ট – ইলেক্ট্রো ফিজিওলজিস্ট- ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট ও রেডিওলজিস্ট

FAQ's

After gathering general information about the patient's health from our cardiologist will review the patient's medical history, and do a complete physical examination. Then the doctor might order the necessary investigations to determine the health of your heart.

Our heart consists of four chambers; right atrium, left atrium, right ventricle, and left ventricle. The right atrium connects to the right ventricle, and the left atrium connects to the left ventricle with the help of a tricuspid valve and mitral valve, respectively. However, in a healthy heart, there is no direct connection between the two atria or the two ventricles. In cases of septal defects, there is an opening between either the two atria or two ventricles. It is known as a hole in the heart.

The cardiac rehabilitation program is for people suffering from cardiovascular diseases. Through this program, the patient can recover faster from their cardiac illness/surgery and restore normal activity and lifestyle under the supervision of the doctors. If you have a heart attack, heart valve surgery, coronary bypass surgery, or percutaneous coronary intervention, you may opt for a cardiac rehabilitation program.

Cholesterol, Hypertension, Obesity, Diabetes, Smoking, Family history of heart disease are some of the common risk factors. To get rid of these, visit the best heart hospital in Delhi.

Mild discomfort or pain in the chest area, may radiate to the neck, jaw, or arm on the left side of the body and is usually associated with shortness of breath, nausea, and sweating. Diabetics and women may not have chest discomfort but may have only a few of the associated symptoms. If you notice any of the symptoms, visit the best heartcare hospital in Delhi.

Yes, some heart diseases can be inherited such as high blood cholesterol, cardiomyopathies, arrhythmias, and congenital heart diseases. To know more, visit the heart care hospital in Delhi.

Some illnesses can cause heart disease, but a majority of heart diseases can be prevented by adopting a healthy lifestyle. Get the finest treatment at the best cardiology hospital in Delhi.

Yes, a yearly health check-up that includes a blood pressure check, lipid, and cholesterol test and a discussion with your doctor about other risk factors should not be overlooked.

Blogs

Call Us